কে এই বাঙালি ব্যাকপ্যাকার!

Bengali Backpacker About

আমি সাজেদ, পুরো নাম সাজেদুর রহমান।

বর্তমানে লুজ টু গেইন এ নিউট্রিশন কনসাল্টেন্ট হিসাবে কাজ করি। আমার কাজ টা অনলাইন ভিত্তিক তাই একজায়গাতে না থাকলেও চলে। একপ্রকার ডিজিটাল নোম্যাড বলা যায় তবে পুরপুরি না। ঘোরাঘুরিটা সিরিয়াসলি শুরু করি ২০১৮ থেকে। এর আগে আসলে সময় থাকলেও সামর্থ্য ছিল না। ২০১৮ এর আগে দেশে অনেক জায়গাতে গিয়েছি, একবার ইন্ডিয়াতে আত্মীয়র বাসায় ও বেড়িয়ে এসেছি।

২০১৮ এর আগে ইনকাম তেমন করতাম না, তাই সময় সুযোগ আসলেও সামর্থ্যে কুলায় নি বলে তেমন ঘুরতে পারিনি। নতুন নতুন ইনকাম করছি হাতে সময় ও আছে কিন্তু বিপত্তি হল সঙ্গীর অভাব। আগে কোনদিন একা একা কোথাও ঘুরিনি তাই সাহসেও কুলায় না। ২০১৮ এর শুরুতে ভুটান গেলাম ঘুরতে। সেবার প্রথম গ্রুপে ঘুরতে গেছি দেশের বাইরে। কেন জানি গ্রুপে ঘোরা আমার পোষাল না। ঠিক করলাম একা একাই ঘুরবো এরপর, যা আছে কপালে।

আমি একটা জিনিষ খুব ভাল পারি তা হল গুগল করে তথ্য খুঁজে নিতে। গুগল করতে করতে প্রথম ব্যাকপ্যাকিং শব্দটা শুনলাম । এরপর ধীরে ধীরে সবকিছু জানলাম । অনেক নাম করা ট্র্যাভেল ব্লগার, ভ্লগার কে চিনলাম তাদের লেখা পড়লাম, তারা কিভাবে একা একা ঘুরে বেড়াচ্ছে দেখে অনুপ্রাণিত হলাম। দেশে কাউকে তেমন দেখিনা ব্যাকপ্যাকিং করতে এবং এই  সম্পর্কিত তথ্য ও অনেক কম। আর ফেসবুকে বিভিন্ন গ্রুপে বাজেট ট্র্যাভেল নিয়ে যেসব খরচের বর্ণনা দেখি তার চেয়ে অনেক কম খরচে ব্যাকপ্যাকিং করে বিদেশিরা ঘুরে।

২০১৮ এর জানুয়ারি তে ভুটান থেকে ঘুরে এসেই পরিকল্পনা করতে থাকি নিজের প্রথম সোলো-ব্যাকপ্যাকিং ট্যুরের। যেহেতু ভিসা জটিলতা আছে তাই বাকি সবার মত ইন্ডিয়া ভুটানের পর মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর এর পরিকল্পনা করি। পরে জানতে পারি এই দুইটা দেশের সাথে বালি ঘুরে ফেললে সস্তায় হয়ে যাবে। সারাদিন এই তিনটা দেশ নিয়ে পড়তে থাকি, ভিডিও দেখতে থাকি। মালয়েশিয়ার ভিসা পেতে অনেকদিন লেগে যায় আর হাতে সময় কম ছিল তাই শেষমেশ বালি আর মালয়েশিয়ার পরিকল্পনা করি। তারপরে আবার ৩১ দিনের লম্বা ট্যুর! একমাস ঘুরবো বলে ঠিক ছিল আগে সিঙ্গাপুর বাদ যাওয়াতে বালিতে একটু বেশিদিন থাকি।

নিজের প্লেনের টিকেট টা ও নিজেই কাটি আর সেবার ই প্রথম প্লেনে ভ্রমণ ছিল। সবকিছু নিয়ে বেশ দ্বিধায় ছিলাম, প্লেনের টয়লেট কিভাবে ব্যাবহার করতে হয় সেটাও গুগল করেছিলাম। অনেকের কাছে এসব হয়ত হাস্যকর শোনায়। এসব নিয়ে কেউ কখন লিখেও না। আমি সেদিন ঠিক করি আমার সব লেখা একটা পেইজে লিখবো। অনেক ভেবে বাঙালি ব্যাকপ্যাকার নাম টা ঠিক করি। আর প্রথম ট্রিপ টা কে সিম্বোলিক করতে বালিতে ১৪ দিন লুঙ্গি পরেই ঘুরি। সেই ট্রিপে অনেক কিছু শিখতে পারি। এই ঘোরাঘুরি যেন থেমে না যায় আর সবসময় একটা ঠেলা থাকে পিছন থেকে  এই ভেবে চিন্তা করি লেখালেখি টা চালিয়ে যাব। এতে করে আমার ব্লগ আর পেইজের পাঠকদের নতুন লেখা দিতে হবে এই চিন্তায় ঘুরতে যাবার একটা তাড়না তৈরি হবে।

সেই থেকে শুরু করে এশিয়া, ইউরোপের ২৮ টা দেশ একা একা ঘুরে ফেলেছি। মাসের পর মাস ব্যাকপ্যাকিং করেছি আর ট্রিপ শেষে এসে যখনি কত খরচ হল বলেছি সবাই ই অবাক হয়েছে। বিদেশে বেড়ানো মানে অনেক খরচের ব্যাপার এই ভিতি টা কাটাতে চাই আমি। ব্যাকপ্যাকিং কিভাবে করতে হয় , আমার ভ্রমণের গল্প টিপস ট্রিক্স এসব নিয়ে খুঁটিনাটি লিখব আমি এখানে। যদিও কাজের চাপে খুব বেশি সময় বের করতে পারিনা বলে খুব ঘন ঘন লেখা দেয়া হয়ে উঠে না। তবে চেষ্টায় আছি সময়। আমার জন্য দোয়া রাখবেন, ধন্যবাদ।

Follow MeDon’t forget to follow me via social media.